বাংলাদেশের সবচেয়ে সম্ভাবনাময় খেলোয়াড়ের নাম সৌম সরকার (!)

সম্ভাবনাময় বললাম এই কারণে- প্রতিদিন সৌমের ‘ভালো খেলার সম্ভবনা’ আছে বলে মাঠে নামানো হয়। এইভাবে যদি প্রতি ম্যাচে ১ জন করে নতুন প্লেয়ারের মাঝে সম্ভাবনা খোঁজা হতো তবে এতদিনে ১০-১৫টা সাকিব-মুস্তাফিজ খুঁজে পাওয়া যেতো।
নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ টি-টুয়েন্টি ম্যাচে সৌমের স্কোর ছিলো ১ বলে শূণ্য রান। আর বল হাতে ১ ওভারে কোন উইকেট না পেয়ে ১৭ রান। মানে ব্যাটসম্যান হিসেবে সম্ভাবনা না পেয়ে বলের মধ্যে সম্ভাবনা খোঁজা হয়েছিলো, কিন্তু দুঃখজনকভাবে নিউজিল্যান্ডের প্লেয়াররা এমন মাইর দিছে যে, ১ ওভারের বেশি বল দেয়ার সাহস হয় নাই।
আসলে সবই কোটার খেলা, হিন্দু কোটার সুবিধা। আওয়ামী সরকারের পক্ষ থেকে বলা আছে- কমপক্ষে ১ জন হিন্দু প্লেয়ার খেলাতেই হবে, বেশি হলে আরো ভালো। এই জন্য ফালতু খেললেও কখনও সৌম, কখনও সুভাশীষ, কখন লিটন দাস আর কখন শুভাগত হোমের মধ্যে সম্ভবনা খোঁজা হয়।
তবে ক্রিকেট খেলায় হিন্দু কোটায় বেহাল অবস্থা দেখে একটি বিষয় অনুধাবন করা যায়, সরকার সারা দেশ জুড়ে যে হিন্দু কোটা চালু করেছে তার ফলাফল নিয়ে। সব গুরুত্বপূর্ণ পদে মুসলমান বাদ দিয়ে হিন্দু বসিয়ে বলছে- “ওর মধ্যে সম্ভাবনা আছে।” যেহেতু বাংলাদেশের মানুষ দেশের খবর রাখে না, শুধু ক্রিকেট খেলার খবর রাখে, তাই ক্রিকেটের কোটার বিষয়টি চোখে পড়ছে, বাকিগুলো আড়ালে থেকে যাচ্ছে।
সৌম যেমন ১ বলে ০ রান আর ১ ওভারে ১৭ রান দিয়ে ক্রিকেট দলকে ডুবিয়েছে, ঠিক তেমননি সারা দেশের হিন্দুরা সরকার-প্রশাসনের রন্দ্রে রন্দ্রে ঢুকে দেশটাকে ডুবিয়ে দিচ্ছে । কবে যে মানুষ সচেতন হবে, সেটা সৃষ্টিকর্তাই ভালো জানেন।
loading...