সৌদি আরবে ৫০টি নাম রাখা নিষিদ্ধ

অনলাইন ডেস্ক
প্রিন্ট 

সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ‘সেদেশের ধর্ম ও সংস্কৃতির বিরোধী’- এই কারণ দেখিয়ে ৫০টি নাম নিষিদ্ধ করেছে। সেদেশের অভিভাবকরা এখন থেকে তাদের সন্তানদের এসব নাম রাখতে পারবেন না।

নিষিদ্ধ নামগুলোর মধ্যে আছে আবদুল নাসের, ইমান, আবরার, আমির, নবী, নাবিয়া (নারী নবী), আবদুল মুসলেহ, আবদুল নবী, আবদুল মু’ইন, আবদুল রসুল, মালিকা, তবারক, মায়া, রাম (হিন্দু দেবতা), বিনিয়ামিন, লিন্ড, এলিস ইত্যাদি।

নিষিদ্ধ ৫০টি নামের একটি তালিকাও প্রকাশ করেছে সরকারের সিভিল এ্যাফেয়ার্স বিভাগ।

গালফ নিউজ পত্রিকার এক রিপোর্টে বলা হয়, এসব নাম নিষিদ্ধ করার কারণ হলো এগুলোকে ‘ধর্মদ্রোহী’, অনারব, অনৈসলামিক, অথবা সৌদি আরব রাজ্যের সংস্কৃতি বা ধর্মের সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণ।

এ ছাড়া তালিকায় আরো কিছু নাম আছে যা ‘বিদেশী’ বা ‘অসঙ্গত’। তালিকায় আরো কিছু নাম আছে যার অর্থ রাজা বা রাজকীয় ব্যাপারগুলোর সাথে সম্পর্কিত। যেমন সুমাও, মালেক (রাজা) বা মালিকা (রানি)।

আর কিছু নাম আছে যা এরকম কোন শ্রেণীতে ফেলা যায় না। তাই এগুলো কেন নিষিদ্ধ করা হলো – তা যে যেমন খুশি ভেবে নিতে পারেন।

পঞ্চাশটি নামের পুরো তালিকা: মালাক (দেবদূত), আবদুল আতি, আবদুল নাসের, আবদুল নাসের, আবদুল মুইন, আবদুল মুসলেহ, বিনিয়ামিন (বেঞ্জামিন-এর আরবি রূপ), নারিস, ইয়ারা, সিতাও, লোল্যান্ড, তিলাজ, বারাহ, আবদুল নবী, আবদুল রসুল, সুমাও (রাজকীয় মর্যাদা), আল-মামলাকা (রাজ্য), তাবারক(যার ওপর আশীর্বাদ বর্ষিত হয়েছে), নারদীন, স্যান্ডি, রাম(হিন্দু দেবতা), মালিন, এলেইন, ইনার, মালিকতিনা, মায়া, লিন্ডা, রান্ডা, বাসমালা (ঈশ্বরের নাম উচ্চারণ), জিবরিল, আবরার, ইমান, বায়ান, বাসেল, বিরিলাম, নবী, নাবিয়া, আমির (রাজপুত্র), তালিন, আরাম, নারিজ, রিতাল. এ্যালিস. লারিন, কিবরিয়াল, লরেন।

loading...