শাকিব খান প্রসঙ্গে টাইগার সাকিবের স্ত্রী শিশিরকে টানলেন অপু

আমাদের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান একজন মহাতারকা। তিনি এত বড় তারকা হবার পরও তার স্ত্রী শিশিরকে মিডিয়ার সামনে এনেছেন। তাহলে আমি তো আগে থেকেই মিডিয়াতে কাজ করছি। ঘরের মানুষকে সাকিব আল হাসান বাইরে পপুলার করেছেন। আর শাকিব খান পপুলার মানুষকে ঘরে বসিয়ে রাখতে চাইছেন! তাই এটা নিয়ে এখন কিছু মন্তব্য না করে আমি সময়ের হাতে ছেড়ে দিলাম।’ কথাগুলো বলেছেন শাকিব খানের স্ত্রী অপু ইসলাম খান। সম্প্রতি এক জাতীয় দৈনিকের সাথে আলাপচারিতায় এই কথাগুলো বলেন। শাকিব খান তো চান অপু ইসলাম খান কাজ না করে সংসার করুক? আলাপচারিতায় এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি এসব কথা বলেন।

অপু বিশ্বাস টিভি লাইভে আসার কারণে শাকিব বেশ মনক্ষুন্ন হন। এ বিষয়ে কি ভাবছেন জানতে চাইলে অপু বিশ্বাস বলেন, শাকিব কেনো আমাকে ভুল বুঝছে এটা আমি জানি না। আমার কাছে মনে হয় যে, টুডে ওর টুমরো তো বলতেই হতো। তাই না। শাকিবের হয়তোবা মনে হয়েছে এখনই কেন আমি বললাম। এ বিষয়টা তো আমি আগেও বলেছি। যখন আমাদের বাচ্চা হয়ে গেল তখন মনে হয় শাকিবের এ বিষয়টি নিয়ে মানসিক প্রস্তুতি নেয়া উচিত ছিল। তবে সে কেন এখনো এ বিষয়টাকে এমন ভাবছে জানি না। তবে শাকিব যে মনে করছে এটা চক্রান্ত তা ঠিক না। যদি চক্রান্ত করার ইচ্ছে থাকতো তাহলে বিগত আট বছরে অনেক বিষয় নিয়েই চক্রান্তে জড়াতে পারতাম। তখন যেহেতু করি নি তাই এখনো সেটার সম্ভাবনা নেই।

অপু বিশ্বাস আরো বলেন, শুধু একটা কথা স্পষ্টভাবে বলতে চাই-যখন আমাদের সন্তান হয়ে গেছে তখন তার কথা ভেবে সবার সামনে এসেছি। আমার সন্তানের বিবেক বুদ্ধি হবার আগে আমি সবার সঙ্গে তাকে পরিচয় করে দিয়েছি। আর বিষয়টি ও বড় হবার পর ঘটলে হয়তোবা তার ধারনা হতে পারতো যে, সে পৃথিবীতে আসাতে কি তার বাবা-মা কোনো বিপদে পড়েছিল। আর তাই এতদিন তারা তা প্রকাশ করতে পারে নি। এসব অনেক বিষয় আমি চিন্তা করেছি। আমার বাচ্চার বয়স গেল ২৭শে এপ্রিল সাত মাসে পড়েছে মাশাআল্লাহ। আমার সন্তান যেন বড় হবার পর আনন্দে থাকে, কষ্ট যেন না পায়। আট-দশটা সেলেব্রেটির সংসারের মতো আমার সন্তানও যেন গর্ব করে বলতে পারে আমার বাবা-মাও জনপ্রিয় সেলিব্রিটি। যেটা মৌসুমী আপা ও সানী ভাইয়ের ছেলে-মেয়ে বলতে পারছে। তাই আমার এটাকে ভুল সিদ্ধান্ত বলে মনে হয় না।

শাকিবের ঘরে কবে ফিরবেন? এমন প্রশ্নের জবাবে অপু বলেন, শাকিব তো বলেই সংসার ছিল। আমি আমার সন্তানকে সময় দিতে চাই। আর আমাকে তো কাজে ফিরতে হবে। এসব নিয়ে এখন ভাবছি না। সবকিছু ভাগ্যের উপর ছেড়ে দিয়েছি। আমার বাচ্চাটা হবার সময়ও শাকিব খান অনেক ব্যস্ত ছিল। যেটা হচ্ছে এটা ভাগ্যের লিখন। এটা নিয়ে ক্ষোভ, চাওয়া পাওয়া নেই আমার।

loading...