যৌন চিকিৎসার নামে আপত্তিকর ভিডিও ধারণ, একজন গ্রেপ্তার!

মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার টেকেরহাট এলাকা থেকে ভুয়া চিকিৎসক কাজী নিজাম উদ্দিন শুভকে (৩০) গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

গতকাল রোববার র‍্যাব ৮-এর সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ওই ভুয়া চিকিৎক এসএসসি পাস না করেও নিজেকে যৌন বিশেষজ্ঞ সাজিয়ে চিকিৎসার নামে নারীদের আপত্তিকর ভিডিও ধারণ ও নানা অপকর্ম করে আসছিলেন।

র‍্যাব-৮ জানায়, টেকেরহাট এলাকায় সেবা মেডিকেল হল নামের একটি প্রতিষ্ঠান খুলে গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার নলকোনা গ্রামের কাজী নিজাম উদ্দিন শুভ নিজেকে যৌন বিশেষজ্ঞ দাবি করতেন। তিনি নারীদের অশ্লীল ভিডিও ধারণ এবং তা প্রচারের ভয় দেখিয়ে অর্থ আত্মসাৎ করে আসছিলেন। এক নারীর এমন অভিযোগের ভিত্তিতে র‍্যাব অভিযান চালিয়ে গত শনিবার বিকেলে নিজাম উদ্দিন শুভকে আটক করে। পরে তাঁর কাছ থেকে ল্যাপটপ, ক্যামেরা, পেনড্রাইভ, ভিডিও ডিক্স, আটটি মোবাইল ফোন, ১৬টি সিমকার্ডসহ গোপনে ভিডিও ধারণের ডিভাইস জব্দ করা হয়। এ ছাড়া নারীদের স্বাক্ষরিত ছয়টি খালি স্ট্যাম্প উদ্ধার করা হয়।

র‍্যাব-৮ ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মেজর মো. রাকিবুজ্জামান জানান, অনেকদিন ধরে কাজী নিজাম উদ্দিন শুভ নিজেকে চিকিৎসক পরিচয়ে অশ্লীল ভিডিও ধারণ ও তা প্রচারের ভয় দেখিয়ে অর্থ আত্মসাৎ করে আসছিলেন। এ ছাড়া অনেক নারীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে পর্নোভিডিও তৈরি করতেন।

মেজর মো. রাকিবুজ্জামান আরো জানান, কাজী নিজাম উদ্দিন নিজেকে চর্ম, যৌন ও শিশুরোগ  বিশেষজ্ঞ বলে দাবি করে প্রচারপত্রও প্রকাশ করলেও তিনি এসএসসি পাস করতে পারেননি। প্রতারণার কাজে তিনি একেক সময় একেক সিমকার্ড ও মোবাইল ফোন ব্যবহার করতেন। এ ছাড়া তিনি  প্রতারণার মাধ্যমে একাধিক বিয়ে করেছেন। তাঁর বিরুদ্ধে ডাকাতি, ধর্ষণ ও ধর্ষণচেষ্টার তিনটি মামলা রয়েছে।

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জিয়াউল মোর্শেদ জানান, পর্নোগ্রাফি আইনে রাজৈর থানায় শুভর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। তাঁকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

loading...