প্রধানমন্ত্রী খালি পায়ে হেঁটে বেড়ালেন বালুকাবেলায়

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলায় ইনানী বিচে সমুদ্রজলে হাঁটলেন  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। খালি পায়ে হেঁটে বেড়ালেন বালুকাবেলায়।

কক্সবাজারের বে ওয়াচ রিসোর্টের সামনে সৈকতের বেলাভূমিতে মঞ্চ করে হয় এই অনুষ্ঠানটি। দুপুর সাড়ে ১২টায় অনুষ্ঠান শেষ হলে শেখ হাসিনা সোজা সৈকতে নেমে যান। সেখানে কিছুক্ষণ খালি পায়ে হাঁটেন তিনি, নামেন পানিতেও। বে ওয়াচ রিসোর্টেই মধ্যাহ্ন ভোজ সারবেন তিনি। এই অনুষ্ঠানে বক্তব্যে শেখ হাসিনা বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে প্রথম সমুদ্র দেখার অভিজ্ঞতার কথা জানান।

ইনানীর সঙ্গে জড়িয়ে আছেন বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিও। ১৯৫৮ সালে সামরিক শাসনামলে অরণ্যঘেরা ইনানীর চেনছড়ি গ্রামে বেশ কিছু দিন ছিলেন বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বাংলাদেশের প্রধান পর্যটন শহর কক্সবাজারকে আরও আকর্ষণীয়ভাবে গড়ে তোলার কথাও বলেন শেখ হাসিনা। সকালে বিমানের বোয়িং উড়োজাহাজ মেঘদূত-এ কক্সবাজার নামার পর ইনানী সৈকতে যান প্রধানমন্ত্রী। এর মধ্য দিয়ে সেখানে সুপরিসর বিমান চলাচল শুরু হল।

সমুদ্র সৈকতে শেখ হাসিনার একা একটি ছবিও তোলেন ফটোসাংবাদিকরা। মুহূর্তেই ছবিগুলো ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

এর আগেও নানা সময় ব্যতিক্রমী কাজ করে সমাদৃত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রায়ই তিনি হয়ে যান অন্য রকম, কখনও আনন্দ করেন শিশুদের মতোই।

কয়েক মাস আগেই গোপালগঞ্জে নিজ বাড়িতে গিয়ে সকাল বেলা খেয়ালের বসে গ্রাম ঘুরেছেন রিকশা ভ্যানে করে। তারও আগে সুইজারল্যান্ড সফরে গিয়ে বোনের সঙ্গে খেলা করেছেন বরফ নিয়ে।

আর গণভবনে শিশুদের সঙ্গে তার প্রায়ই খেলার ছবিও এসেছে গণমাধ্যমে। এসব ঘটনাগুলো এক অন্যরকম শেখ হাসিনাকেই তুলে ধরে দেশবাসীর কাছে।

loading...